গলাচিপায় ‘অভিশপ্ত’ এক লঞ্চ ঘাট চর কাজল

আসাদুজ্জামান টিটোন

মো. আবদুল হাই রাহাত• গলাচিপার চর কাজল ইউনিয়নের চর কাজল লঞ্চঘাটের পল্টুনটি প্রায় ৪০-৫০  শতাংশ  জমি নিয়ে  সোমাবার রাত ১০.৩০ মিনিটে নদীগর্ভে ডুবে যায় । এই দুর্ঘটনায় ২ জন গুরুতর আহত হন ও কয়েকটি দোকান ঘরের ক্ষয়ক্ষতি হয়।  এই খবর চর কাজলের মানুষের মাঝে সোরগোল পরে । স্থানীয় উৎসুক জনগণ ভিড় জমাতে থাকে লঞ্চঘাটে। এই খবর গলাচিপা প্রতিদিন  জানতে পেরে সরেজমিনে যান গলাচিপা প্রতিদিন’র এই প্রতিবেদক । গলাচিপা প্রতিদিন প্রতিবেদক ঘুরেঘুরে চর কাজল লঞ্চঘাটের দুর্বিষহ অবস্থা দেখে স্থানীয় ২ নং ওয়ার্ড এর ইউপি সদস্য মো. সোহেল হাওলাদারের কাছে গিয়ে জানতে চান ঘটনা সম্পর্কে ।  তিনি জানান ভাই এই ঘটনার কথা আপনাকে বলার মত আমি কিছু খুঁজে পাই না।  আপনি যদি আজকের এই অবস্থায় ঘটনা স্থানে থাকতেন তবে আপনি এর স্মৃতি কথা লিখতে পারতেন ।   পল্টুন থেকে কয়েক হাত দূরে তিন চারটি চা-পান ও অন্যান্য দোকান সেখানে বেশকিছু লোকজন চা পান খাচ্ছে । চোখের পলকে স্থানীয় মাপের ৩-৪ করা (২০ শতাংশ ) জায়গা নিয়ে নদী মধ্যে  পল্টুনটি ডুবে যায় । ভাঙ্গনের কবলে পরে পানির নিচে চলে যায় মোমেন (২০) ও রিয়ান বিশ্বাস (২২)। চা দোকানিতে আর যারা ছিল কি ভাবে যে ভাঙ্গনের এমন অবস্থা থেকে রাস্তার উপরে উঠে গেলো তারাও বলতে পারেনা । আল্লাহ সকলের রক্ষা করেছেন । মো. সাগর (১৯) গুরুতর আহত  রিয়ান বিশ্বাস (২২) এর কাছে নিয়ে  যান এই প্রতিবেদকে ।  রিয়ান বিশ্বাস (২২) কাছে দুর্ঘটনার কথা  জানতে চাইলে কোন মতে এই প্রতিবেদকে জানান ভাই আল্লাহ আমাদের আবার নতুন করে জীবন দিয়েছেন । আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করি। আমরা দু’জন একই দোকানে চা খাচ্ছি । দেখলাম একটু চুল ফাট ধরেছে । এ দেখতে না দেখতে পানির নিচে  ডুবে গেলাম । বাঁচার চেষ্টা  করি। উঠতে গেলে পাথায় পল্টুনটি বাঝে উঠতে পারিনা  আবার নিমেষেই ভেসে উঠি এইটুকু সময়ের মধ্যে । অনেক দাপাদাপি(চেষ্টা) করি  বাঁচার জন্য তো নদীর অনেক পানি আমার পেটে চলে যায় । যখন আমি ভেসে উঠি কোন মতে নদীর কূলে আসলে আমাকে কারা যেনো তরে (উপরে) তুলে। তার পর আমি   জ্ঞান হারিয়ে ফেলি। মোমেন (২০)  এর কাছে জানতে চাইলে তিনি কোন কথা বলতে পারেন নি । এই দুর্ঘটনার কবলে পরেন   উপজেলা চেয়ারম্যান’র ছোট ভাই আসাদুজ্জামান টিটোন । তার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলে স্রেফ এইটা একটা চর কাজল লঞ্চঘাটের গজবি বালা    বলে আখ্যা দেন । এখানের মানুষ মানুষের সাথে দীর্ঘ দিন থেকে যে আচার  ব্যবহার করে তার পরিণতি আল্লাহতালা এখানের মানুষকে দেখাচ্ছে। তিনি বলেন আমি দোকানের কাছে দাড়িয়ে কথা বলছি দেখলাম চোখের পলক ফেলতে পারিনি এরই মধ্যে অনেক জায়গা নিয়ে  পল্টুনটি পানির নিচে চলে যায় । যে শিকল আর গুনাররশি দিয়ে পল্টুন টি বাধাছিল সেই শিকল গুনাররশি টাস করে ছিরে যায় আবার পল্টুন ফেসে উঠে । আমি আল্লাহর কাছে বলি আল্লাহ তুমি এতো কিছু পার দেখেও এখানে মানুষ ভালো হয় না কেন? দুর্ঘটনার কবলে পরা অনেকেই বলেন টিটোনের মত  একই কথা । চর কাজল লঞ্চঘাটের কিছু কিছু মানুষ চর কাজল ও চর বিশ্বাসের মানুষের সাথে অমানবিক ব্যবহার করেন এমনটাই জানা যায় । নাম না বলার কথা বলে একজন জানায় এই ঘাট যারা ইজারা নিয়েছে সর্বচ্চো  ডাক উঠে ১০ লাক্ষ দলীয় ক্রন্দল এবং স্থানীয় প্রভাব  মিলেয়ে ডাক উঠিয়েছেন ২৩ লাখ । আর এই ঘাটকে কেন্দ্র করে যত মানুষ অপমান অপধস্ত হয়।  গলাচিপা প্রতিদিন জানতে চায় উপস্থিত কয়েকজনের কাছে ভাঙ্গন রোধের কথা । লঞ্চহাটের ব্যবসায়ী হাজী মিলন হাওলাদার (৩৬) বলেন এই ভাঙ্গন দীর্ঘ ২০ বছর পূর্ব থেকে তবে কয়েক বছর ধরে বেশি ভাঙ্গছে । ভাঙ্গনের কবলে নিঃস্ব হয়েছে কয়েক শতঘর বাড়ি কেউ কেউ এখন অন্যের ভিটে বাড়িতে থাকেন । কেউ ঢাকা চট্টগ্রাম থাকে । নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে ২০ বছরে কয়েক হাজার একর জমি ।  এই প্রতিবেদক জানতে চায় স্থায়ীয় চেয়ারম্যান কোন পদক্ষেপ নিয়েছেন কিনা ।  তিনি জানান স্থানীয় চেয়ারম্যান কি আর করবেন ?  সাবেক এমপি গোলাম মাওলা রনি’র আমলে ৩২ কোটি টাকার বরাদ্ধ হয় এই লঞ্চঘাটের ভাঙ্গন রোধের জন্য কিন্তু কোন কাজ হয় নি আজও । হাজী মিলন হাওলাদার বলেন এই ৩২ কোটি টাকা বরাদ্ধের কথা বর্তমান এমপি আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসেন নিজেও নাকি স্বীকার করেছেন  । কিন্তু কোন  কাজই হয় না। অনেকই বলেছেন চর কাজল লঞ্চঘাটের এই ‘ ভাঙ্গন রোধের জন্য  জৈনপুর পীর, নাজিরপুরপীর দিয়ে অনেক দোয়া মাহফিল করিয়েছেন তারা স্থানীয়দের সুধ , অন্যায়, অবিচার, জুলুম ইত্যাদি থেকে ভালো হবার কথা বলেন’  ।   বিনয় দাস( ২৩), শাহিন (৩০) , ফরহাদ (২৪),নাসির( ৩৬) , আরিফ জানান এই ভাঙ্গন রোধের জন্য চর কাজল ইউনিয়নের  শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীরা মানববন্ধন ও করেছে । কেউ কোন পদক্ষেপ নেননি । এখন আমরা ঘাটের পল্টুনতো দূরের কথা নদী পাড়ে যেতে ভয় হয়। ‘আমাদের চর কাজলকে দেখার মত কেউ নেই।’- সম্পাদক ও প্রকাশক, গলাচিপা প্রতিদিন.কম

Print Friendly

Related posts

Leave a Comment